মেনু নির্বাচন করুন

নাগরী ইউনিয়নের ইতিহাস

নাগরী ইউনিয়ন একটি সকল ধর্মের মানুয়ের বসবাসের এলাকা। এখানে সকল ধর্মের মানুষ সুন্দর ও সু-শৃক্ষল ভাবে জীবন জাপন করতেছে। নাগরী ইউনিয়নের মধ্য দিয়ে এশিয়ান বাইপাস রোড চলে গেছে চট্টগ্রাম থেকে যমুনা সেতু হইয়া চলে গেছে। নাগরী ইউনিয়নে কামতা গ্যাস ফিল্ড অবস্থিত। এখানে দেশেরে সর্ব বৃহত খ্রিষ্ঠানদের গীর্জা অবস্থিত।আগে চেয়ারম্যান কে গ্রাম প্রেসিডেন্ট বলা হত। ১৯৫০সালে পাকিস্তান শাসনামলে গ্রাম প্রেসিডেন্ট এর পদকে ইউনিয়ন চেয়ারম্যান পদবী ঘোষণা করা হয়।১৯৫৪ সালে প্রথম গ্রাম প্রেসিডেন্ট হন রজনী কান্ত বলাধীকারী । তারপর পর্যায়ক্রমে মনাই ঘোষ, আঃ কুদ্দুস গ্রাম প্রেসিডেন্ট এর দায়িত্ব পালন করেন।বর্তমানে ৫৩টি গ্রাম ৩১টি মৌজা নিয়ে এই ইউনিয়ন   প্রতিষ্টিত। এখানে একজন চেয়ারম্যান, ৯জন মেম্বার ও ৩জন সংরক্ষিত মহিলা সদস্যা রয়েছে। প্রায় ১০ বছর আগেও ইউনিয়নের প্রতিটি রাসত্মা কাচা ছিল তখন যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম ছিল নৌকা বা ট্রলার। কিন্তু বর্তমানে অধুনিকতার ছোয়ায় ইউনিয়নের প্রায় প্রতিটি রাসত্মাই পাকা হয়েগেছে।এই ইউনিয়নের কেন্দ্র স্থালে অত্র ইউনিয়ন পরিষদটি অবস্থিত যাহা উলুখোলা বাজারের পাশে অবস্থিত। উলুখোলা বাজার অত্র ইউনিয়নের সবচেয়ে বাড় ও জনপ্রিয় বাজার। এখানে সকলেই আঞ্চলিক ভাষায় কথা বলে। এবং এখানে হিন্দু ও মুসলমানও খ্রিষ্টান তিন ধরনের লোক বসবাস করে। এই ইউনিয়নের অন্যতম অতিহ্য হল ঐতিহাসিক  এই ইউনিয়নের মধ্যে এশিয়া মহাদেশের ম্ধ্যে সর্ব বৃহৎ র্গিজা। সেটি নাগরী বাজারের পাশে অবস্থিত।